ই পাসপোর্টের টাকা জমা দেওয়ার নিয়ম (ঘরে বসে)

পাসপোর্ট আবেদন করার কাজ সফলভাবে সম্পন্ন করে নেয়ার জন্য আপনাকে অবশ্যই, ই পাসপোর্টের টাকা জমা দেওয়ার নিয়ম জেনে ই পাসপোর্ট ফি জমা দেয়ার কাজ সম্পন্ন করে নিতে হবে।

এ ক্ষেত্রে নির্দিষ্ট পরিমাণ ই পাসপোর্ট ফিস জমা দেয়ার মাধ্যমে আপনি আপনার পাসপোর্ট আবেদন করার কাজ সম্পন্ন করে নিবেন। কিভাবে অনলাইনের মাধ্যমে ঘরে বসে ই পাসপোর্ট ফি জমা দিবেন?

ঘরে বসে অনলাইনের মাধ্যমে বিভিন্ন উপায়ে ই পাসপোর্ট ফিস জমা দেয়া সংক্রান্ত যে সমস্ত তথ্য আপনার জেনে নেয়ার প্রয়োজন রয়েছে, সে সমস্ত তথ্য এই আর্টিকেল থেকে জেনে নিতে পারবেন।

সেজন্য ই পাসপোর্ট ফি জমা দেয়ার নিয়ম সংক্রান্ত তথ্য জেনে নেয়ার জন্য এই আর্টিকেলটি শেষ পর্যন্ত দেখে নিতে পারেন।

ই পাসপোর্ট ফি জমা দিতে কি কি লাগবে?

খুব স্বাভাবিকভাবে আপনি যদি ঘরে বসে অনলাইনের মাধ্যমে,ই পাসপোর্টের টাকা জমা দেওয়ার নিয়ম জেনে ই পাসপোর্ট ফি জমা দিতে চান, তাহলে আপনাকে কিছু তথ্য নিজের সংগ্রহে রাখতে হবে।

আপনি যদি নিজের জন্য কিংবা যে কারো জন্য ই পাসপোর্ট ফি জমা দেয়ার কাজ সম্পন্ন করে নিতে চান, তাহলে আপনাকে যে সমস্ত তথ্য নিজের সঙ্গে রাখতে হবে সেগুলো নিচে তুলে ধরা হলো:

  •  কত পৃষ্ঠা কিংবা কত বছর মেয়াদের জন্য পাসপোর্ট আবেদন করেছিলেন, সেই সংক্রান্ত তথ্যের প্রয়োজন হবে।
  • সাধারণভাবে পাসপোর্ট আবেদন করার ক্ষেত্রে আপনি যে ক্যাটাগরির পাসপোর্ট আবেদন করেছিলেন, সেই সংক্রান্ত তথ্য। যেমন: ডেলিভারির ধরন; সাধারণ কিংবা জরুরী।
  • আবেদন করার সময় জাতীয় পরিচয়পত্র কিংবা জন্ম নিবন্ধন নাম্বার।
  • আপনি যে পাসপোর্ট আবেদন করেছেন সে পাসপোর্ট আবেদন করার সময় যে নাম দিয়েছেন, সেই নামের প্রয়োজন হবে। জাতীয় পরিচয়পত্র দেখে সঠিক ইংরেজি নামটি সংগ্রহে রাখতে হবে।
  • আবেদন করার সময় যে ব্যক্তিগত মোবাইল নাম্বার দিয়েছিলেন, সেই ব্যক্তিগত মোবাইল নাম্বারের প্রয়োজন হবে। যার মাধ্যমে পরবর্তীতে আপনার সাথে যোগাযোগ করা যাবে।
  • পাসপোর্ট আবেদন অনুসারে আপনার বর্তমান ঠিকানা এর প্রয়োজন হবে।

উপরে উল্লেখিত তথ্যগুলো যদি আপনার সাথে থেকে থাকে তাহলে, ই পাসপোর্টের টাকা জমা দেওয়ার নিয়ম জেনে আপনি পাসপোর্ট আবেদন ফি জমা দেয়ার জন্যে পরিপূর্ণভাবে প্রস্তুত।

নিচের দেয়া পদক্ষেপ অনুসরণ করার মাধ্যমে এই কাজটি সফলভাবে সম্পন্ন করে নিতে পারবেন।

অনলাইনে ই পাসপোর্টের টাকা জমা দেওয়ার নিয়ম

উপরে উল্লেখিত তথ্যগুলো যদি আপনার সাথে থেকে থাকে তাহলে আপনি অনলাইনে ই পাসপোর্ট ফি জমা দেয়ার জন্য পরিপূর্ণভাবে প্রস্তুত৷

প্রথম ধাপ:১ এ চালান ওয়েবসাইট

অনলাইনের মাধ্যমে ঘরে বসে পাসপোর্ট আবেদন ফি জমা দেয়ার জন্য আপনাকে সর্বপ্রথম নিম্নলিখিত লিংকে ভিজিট করতে হবে এবং তারপরে আমার দেখানো নির্দেশনা অনুযায়ী কাজ চালিয়ে যেতে হবে।

A challan Website

যখনই উপরে উল্লেখিত লিংকে ভিজিট করবেন তখন নিম্নলিখিত স্ক্রীনশটএর মত একটি পেজ দেখতে পারবেন, যে পেইজ থেকে সর্বপ্রথম ” পাসপোর্ট ” বাটনের উপরে ক্লিক করতে হবে।

পাসপোর্ট বাটনের উপরে ক্লিক করার পরে; “পাসপোর্ট ফি” অপশনটি আপনার সামনে চলে আসবে। এবার আপনাকে এই অপশন এর উপরে ক্লিক করতে হবে।

ই পাসপোর্ট ফি জমা দেয়ার নিয়ম (ঘরে বসে)

দ্বিতীয় ধাপ: পাসপোর্ট সংক্রান্ত তথ্য দিয়ে বক্স ফিলাপ

ই পাসপোর্ট ফি অপশনের উপরে ক্লিক করার পরে; তথ্য দিয়ে বক্স ফিলাপ করার মত অপশন ওপেন হয়ে যাবে।

অর্থাৎ আপনার পাসপোর্ট সংক্রান্ত সমস্ত তথ্য এই পপআপে ফিলাপ করার মত থাকবে। সেই সমস্ত তথ্য দিয়ে বক্স ফিলাপ করে নিতে হবে।

এখানে তথ্য হিসেবে আপনি কত পেইজের জন্য পাসপোর্ট আবেদন করেছিলেন এবং কত বছর মেয়াদের জন্য পাসপোর্ট আবেদন করেছেন, সেই সম্পর্কিত তথ্য দিয়ে দুইটি বক্স ফিলাপ করে নিতে হবে।

এই দুইটি বক্স যথাযথ তথ্য দিয়ে ফিলাপ করে দেয়ার পরে, নিচের দিকে সরকারি ভ্যাট সহ পাসপোর্ট আবেদন ফি কত টাকা হয়েছে, সেই সংক্রান্ত তথ্য দেখে নিতে পারবেন।

ই পাসপোর্ট ফি জমা দেয়ার নিয়ম (ঘরে বসে)

আপনার দেয়া সমস্ত তথ্য যদি সঠিক থেকে থাকে এবং আপনি যদি ই পাসপোর্টের টাকা জমা দেওয়ার নিয়ম জেনে টাকা দেয়ার জন্যে পরিপূর্ণভাবে প্রস্তুত থাকে থাকেন তাহলে পরিশেষে “Ok” বাটন এর উপরে ক্লিক করে দিতে হবে।

এবার এই পেজটি কিছুক্ষণ লোড নিবে এবং তারপরে পাসপোর্ট সংক্রান্ত আরও কিছু তথ্য দিয়ে বক্স ফিলাপ করে নেয়ার মতো আরো কিছু অপশন আপনার সামনে ওপেন হয়ে যাবে।

তৃতীয় ধাপঃ নিজস্ব তথ্য দিয়ে বক্স ফিলাপ করা

এবার তৃতীয় ধাপ এবং গুরুত্বপূর্ণ একটি ধাপ হিসেবে আপনাকে আপনার পাসপোর্ট সংক্রান্ত আরও কিছু তথ্য দিয়ে বক্স ফিলাপ করে নিতে হবে।

যাতে করে এটা নিশ্চিত করা যায় যে, আপনি আপনার পাসপোর্ট আবেদনের জন্য ই পাসপোর্ট ফি জমা দিতে চাচ্ছেন।

গুরুত্বপূর্ণ তথ্য হিসেবে; পাসপোর্ট আবেদন নাম্বার, যে ব্যক্তি পাসপোর্ট আবেদন করেছেন সেই ব্যক্তির নাম ইংরেজি ফরমেটে, নিজস্ব ঠিকানা, যোগাযোগের জন্য মোবাইল নাম্বার, যদি ইমেইল এড্রেস থেকে থাকে তাহলে ইমেইল এড্রেস।

এই প্রত্যেকটি তথ্য যথাযথভাবে ফিলাপ করে নিলে ব্যক্তিগত তথ্য দিয়ে বক্স ফিলাপ করার অপশন গুলো আপনি পাড়ি দিতে পারবেন।

ই পাসপোর্ট ফি জমা দেয়ার নিয়ম (ঘরে বসে)

চতুর্থ ধাপঃ ই পাসপোর্ট ফি জমা দেয়ার অপশন সিলেক্ট করে নেয়া

এবার একদম গুরুত্বপূর্ণ ধাপ হিসেবে আপনি কিভাবে ই পাসপোর্ট ফি জমা দিতে চান, সেই সংক্রান্ত তথ্য দিয়ে বক্স করে নিতে হবে।

অর্থাৎ আপনি কিভাবে পাসপোর্ট আবেদন ফিস জমা দিবেন; সেটা হতে পারে অনলাইনের মাধ্যমে ব্যাংক কাউন্টারে গিয়ে অথবা মোবাইল ব্যাংকিং এর মাধ্যমে।

এই তিনটি অপশনের মধ্যে থেকে যেকোনো একটি অপশন এর উপরে ক্লিক করে সেটি সিলেক্ট করে নিন। এক্ষেত্রে আমি যেহেতু অনলাইন ব্যাংকিংয়ের মাধ্যমে পেমেন্ট করতে চাই সেজন্য অনলাইন ব্যাংকিং এর উপরে ক্লিক করলাম।

জেনে রাখা ভালো: আপনি যদি বিকাশ রকেট কিংবা নগদের মাধ্যমে পাসপোর্ট ফি জমা দিতে চান, সেক্ষেত্রে সোনালী ব্যাংক সিলেক্ট করে নিতে পারেন। তাহলে মোবাইল ব্যাংকিং এর মাধ্যমে ফি জমা দিতে পারবেন।

এবং তারপরে; আপনি যে ব্যাংকের মাধ্যমে পাসপোর্ট আবেদন ফি জমা দিতে চান, সেই ব্যাংক সিলেক্ট করে নিন।

একদম সর্বশেষে মন্তব্য দেয়ার বক্সে আপনার যদি কোন মন্তব্য থাকে থাকে তাহলে মন্তব্য দিয়ে দিন; এবং তারপর একদম সর্বশেষে “Save” বাটন এর উপরে ক্লিক করে দিন।

এবার ই পাসপোর্ট ফি জমা দেয়ার ক্ষেত্রে আপনি যেই ব্যাংক সিলেক্ট করেছিলেন, সেই ব্যাংকের যে পেমেন্ট পোর্টাল রয়েছে, সেটি আপনার সামনে ওপেন হবে।

সমস্ত তথ্য যদি ঠিক থাকে থাকে এবং আপনি যদি ই পাসপোর্ট ফি জমা দেয়ার জন্যে পরিপূর্ণভাবে প্রস্তুত থেকে থাকেন, তাহলে Proceed to pay অপশন এর ওপরে ক্লিক করতে পারেন।

ই পাসপোর্ট ফি জমা দেয়ার নিয়ম (ঘরে বসে)

প্রসিড টু পে’ অপশন এর উপরে ক্লিক করে দেয়ার পরে; পেমেন্ট করার জন্য আপনি যেই অপশনটি সিলেক্ট করেছেন, সেই অপশনটি অনুরূপের পেমেন্ট করার জন্য পেমেন্ট কার্ড আপনার সামনে ওপেন হবে।

এবার আপনার ব্যাংক কার্ড সম্পর্কিত যে সমস্ত তথ্য রয়েছে সে সমস্ত তথ্য দেয়ার মাধ্যমে প্রত্যেকটি বক্স ফিলাপ করে নিন। এবং সমস্ত তথ্য যথাযথভাবে ফিলাপ করে নেয়ার পরে Submit বাটন এর উপরে ক্লিক করুন।

গুরুত্বপূর্ণ রিমাইন্ডার: সমস্ত তথ্য দিয়ে সাবমিট বাটনে ক্লিক করার পূর্বে অবশ্যই পাসপোর্ট আবেদন ফি কত টাকা হয়েছে এবং আপনার যে অ্যাপ্লিকেশন আইডি রয়েছে, প্রত্যেকটি তথ্য পুনরায় দেখে নিন।

এবং সমস্ত তথ্য সম্পর্কে আপনি যদি নিশ্চিত অবস্থানে থাকতে পারেন তাহলে একদম সর্বশেষে সাবমিট বাটন এর উপরে ক্লিক করে দিন।

যদি আপনার পাসপোর্ট আবেদন ফিস জমা দেয়ার কাজ সফলভাবে সম্পন্ন হয়ে যায়, তাহলে আপনি এখান থেকে পাসপোর্ট আবেদন ফি জমা দেয়ার রশিদ ডাউনলোড করে নিতে পারবেন।

পেমেন্ট সম্পন্ন করার পরে এ চালানে যে পিডিএফ ফাইলটি রয়েছে, সেই পিডিএফ ফাইলটি ডাউনলোড করে নিতে পারবেন। এবং তার পরে প্রিন্ট করে এটি আপনার সাথে রাখতে পারেন৷

বিকাশের মাধ্যমে ই পাসপোর্ট ফি জমা দেয়ার নিয়ম

এবার আপনি যদি বিকাশের মাধ্যমে ই পাসপোর্ট ফিস জমা দিতে চান, তাহলে উপরে উল্লেখিত উপায়ে পেমেন্ট অপশনে চলে আসতে পারেন।

সমস্ত অপশন যথাযথভাবে ফিলাপ করে নেয়ার পরে একদম সর্বশেষে যেখান থেকে আপনাকে পেমেন্ট মেথড সিলেক্ট করে নিতে হয়, সেখানে চলে আসুন।

এবং তারপরে বিকাশ কিংবা যেকোন মোবাইল ব্যাংকিংয়ের মাধ্যমে পেমেন্ট করার জন্য সর্বপ্রথম অনলাইন ব্যাংকিং সিলেক্ট করে নিন। এবং তারপরে নিচে থেকে ব্যাংক হিসেবে সোনালী ব্যাংক সিলেক্ট করে নিন।

এবং তারপরে একদম সর্বশেষে “OK” বাটন এর উপরে ক্লিক করে দিন।

ই পাসপোর্ট ফি জমা দেয়ার নিয়ম (ঘরে বসে)

ওকে বাটন এর উপরে ক্লিক করে দেয়ার পরে আপনাকে সোনালী ব্যাংক পেমেন্ট গেটওয় তে নিয়ে যাওয়া হবে। এবং এখানে অন্যান্য পেমেন্ট গেটওয় এর মত মোবাইল ব্যাংকিং পেমেন্ট গেটওয় পেয়ে যাবেন।

এরপরে আপনি যেহেতু বিকাশের মাধ্যমে পেমেন্ট করতে চান, সেজন্য মোবাইল ব্যাংকিং অপশন এর উপরে ক্লিক করে দিন।

মোবাইল ব্যাংকিং অপশনের মাধ্যমে ক্লিক করার পরে; আপনি মোবাইল ব্যাংকিং হিসেবে বিকাশ, রকেট, নগদ ইত্যাদি দেখতে পারবেন।

এবার আপনি যেই অপশন এর মাধ্যমে ই পাসপোর্ট ফি জমা দিতে চান, সেই অপশনটি উপরে ক্লিক করে দিন। তাহলে এর পরবর্তী ধাপে পেমেন্ট করার অপশন পেয়ে যাবেন।

ই পাসপোর্টের টাকা জমা দেওয়ার নিয়ম (ঘরে বসে)

যখনই যেকোনো একটি পেমেন্ট মেথড এর উপরে ক্লিক করে দিবেন, তখন তার পরবর্তী পেজে কত টাকা পেমেন্ট পরিশোধ করতে হবে সে সম্পর্কিত তথ্য দেখতে পারবেন।

এবার সমস্ত তথ্য যদি ঠিক থাকে থাকে তাহলে বিকাশের মাধ্যমে কিংবা অন্য যে কোনো রকমের মোবাইল ব্যাংকিংয়ের মাধ্যমে পেমেন্ট করার কাজ সফলভাবে সম্পন্ন করে নিন।

আর উপরে উল্লেখিত উপায়ে আপনি চাইলে বিকাশের মাধ্যমে ই পাসপোর্ট ফিস জমা দেয়ার কাজ সম্পন্ন করতে পারবেন।

উপরে উল্লেখিত উপায়ে আপনি চাইলে খুব সহজেই অনলাইনের মাধ্যমে ব্যাংকের সহায়তায় কিংবা মোবাইল ব্যাংকিংয়ের মাধ্যমে, ই পাসপোর্টের টাকা জমা দেওয়ার নিয়ম জেনে ই পাসপোর্ট ফি জমা দেয়ার কাজ সফলভাবে সম্পন্ন করতে পারবেন।

ই পাসপোর্ট ফি জমা দেয়া নিয়ে কিছু প্রশ্ন উত্তর (FAQ)

পাসপোর্ট ফি কত টাকা কিভাবে জানব?

যেকোনো পাসপোর্ট আবেদন করার ক্ষেত্রে আপনাকে নির্দিষ্ট পরিমাণ ই পাসপোর্ট ফি জমা দিতে হয়। সেক্ষেত্রে; পাসপোর্ট ফি কত টাকা সে সংক্রান্ত তথ্য জেনে নিতে চাইলে এই আর্টিকেলটি দেখে নিতে পারেন।

ই পাসপোর্ট ফি জমা দেয়ার পরে চালান ডাউনলোড করতে না পারলে কি করবো?

অনেক সময় টেকনিক্যাল কারণে আপনি ই পাসপোর্ট ফি জমা দেয়ার পরেও আপনাকে দেখাবে আপনি ই পাসপোর্ট ফি জমা দেননি। নির্দিষ্ট পরিমাণ টাকা একাউন্ট থেকে কর্তন যাবে, কিন্তু আপনার পেমেন্ট বাতিল হতে পারে।

এক্ষেত্রে আপনাকে গুরুত্বপূর্ণ কয়েকটি পদক্ষেপ অনুসরণ করতে হবে। ই পাসপোর্ট ফি জমা দেয়ার পরে চালান ডাউনলোড করতে না পারলে নিম্নলিখিত পদক্ষেপগুলো অনুসরণ করুন।

  • সর্বপ্রথম আপনি যে পেমেন্ট পেজে থাকবেন, সেই পেজটি বন্ধ করবেন না। কারণ, এখান থেকে আপনি সেই তথ্যটি সংগ্রহ করে নিতে পারবেন।
  • সর্বপ্রথম যে পেইজটিতে পেমেন্ট করার পর আপনাকে নিয়ে গেছে সেই পেজটির লিংক কপি করে নিন। কপি করা লিংক এর মধ্যে আপনি 2122-72829740571 এই ধরনের একটি নাম্বার খুঁজে পাবেন।
  • লিংক এর মধ্যে যে নাম্বারটি রয়েছে, সেটি হলো আপনার এ চালান নাম্বার।
  • এবার আপনাকে এই ওয়েবসাইটে চলে যেতে হবে। এবং তারপরে এখানে গিয়ে এ চালান নাম্বার দেয়ার মাধ্যমে চালানের প্রিন্ট কপি ডাউনলোড করে নিতে হবে।

লিংকে ভিজিট করার পরে নিম্নলিখিত স্ক্রীনশটএর মত একটি পেজ দেখতে পারবেন। যেখানে আপনার এ চালান নাম্বার দেয়ার মাধ্যমে পিডিএফ ফাইলটি প্রিন্ট করে নিতে হবে।

এই পিডিএফ ফাইলটি আপনার পেমেন্ট প্রুফ। এটি প্রিন্ট করে নিজের কাছে রাখতে পারেন।

কোন ব্যাংকের মাধ্যমে ই পাসপোর্ট ফি জমা দেয়া যায়?

সর্বশেষ সংশোধনী অনুযায়ী যে সমস্ত ব্যাংকের মাধ্যমে আপনি ঘরে বসে পাসপোর্ট আবেদন ফি জমা দিতে পারবেন, সেগুলোর লিস্ট নিচে তুলে ধরা হলো।

  • A B Bank
  • Agrani Bank
  • Bangladesh Commerce Bank
  • BRAC Bank
  • Dutch Bangla Bank
  • Eastern Bank
  • First Security Islami Bank
  • Islami Bank
  • Midland Bank
  • NRB Commercial Bank
  • One Bank
  • Sonali Bank
  • Southeast Bank
  • Premier Bank

উপরে যে সমস্ত ব্যাংকের লিস্ট দেয়া হয়েছে, সেই সমস্ত ব্যাংকের মাধ্যমে আপনি পাসপোর্ট আবেদন ফি জমা দিতে পারবেন।

Leave a Comment

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

seventeen − 12 =

Scroll to Top