পাসপোর্ট এ চালান দিয়ে পাসপোর্ট ফি জমা দেয়ার নিয়ম

আপনি যদি একটি পাসপোর্ট তৈরি করার চিন্তা ভাবনা করেন, কিংবা আপনি যদি একটি পাসপোর্ট তৈরি করতে চান তাহলে পাসপোর্ট তৈরি করার কাজ সফল হবে সম্পন্ন করে নেয়ার জন্য, পাসপোর্ট এ চালান ব্যবহার করে পাসপোর্ট ফি জমা দিতে হয়।

অর্থাৎ এক কথা বলতে গেলে, পাসপোর্ট এ চালান ব্যবহার করার মাধ্যমে আপনি যদি পাসপোর্ট ফি যথাযথভাবে জমা দিতে না পারেন তাহলে আপনার পাসপোর্ট আবেদন করার কাজ সম্পন্ন হবে না।

সেজন্য এরই ধারাবাহিকতায়, আপনি যদি পাসপোর্ট এ চালান ব্যবহার করার মাধ্যমে পাসপোর্ট ফি জমা দিতে চান তাহলে এই কাজটি কিভাবে সম্পন্ন করবেন তাও আবার ঘরে বসে, সে সংক্রান্ত যাবতীয় তথ্য এই আর্টিকেল থেকে বিস্তারিতভাবে জেনে নিতে পারবেন।

পাসপোর্ট এ চালান আসলে কি?

পাসপোর্ট এ চালান হলো এমন একটি সিস্টেম যার মাধ্যমে আপনি অটোমেটিকলি আপনার পাসপোর্ট এর জন্য ফি জমা দিতে পারবেন। অর্থাৎ বিভিন্ন মেয়াদের এবং বিভিন্ন পেইজের আপনি যে পাসপোর্ট তৈরি করছেন সেই পাসপোর্ট এর যে ফি নির্ধারণ করা হয় তার ফি আপনাকে জমা দিতে হয়।

এবং এই পাসপোর্ট ফি জমা দেয়ার জন্য যে অটোমেটিক সিস্টেম রয়েছে তাকে বলা হয়, পাসপোর্ট এ চালান।

পাসপোর্ট এ চালান এর মাধ্যমে ফি জমা দিতে কি কি ইনফরমেশন লাগে?

আপনি যদি পাসপোর্ট ফি অটোমেটিক সিস্টেমের মাধ্যমে জমা দিতে চান তাহলে এই সিস্টেমের মাধ্যমে পাসপোর্ট ফি জমা দেওয়ার জন্য আপনার কাছে কি কি রকমের তথ্য থাকা লাগবে?

অথবা কি কি রকমের ইনফরমেশন থাকলে আপনি অটোমেটিক ভাবে পাসপোর্ট ফি জমা দিতে পারবেন, সেটা আবার ঘরে বসেই। পাসপোর্ট ফি জমা দেওয়ার জন্য যে সমস্ত ইনফরমেশন এর প্রয়োজন হয় সেগুলো নিচে তুলে ধরা হলো:

  • আবেদনের সময় কত পৃষ্ঠা এবং কত বছর মেয়াদের জন্য পাসপোর্ট তৈরি করেছিলেন সেটির সঠিক তথ্যের প্রয়োজন হবে।
  • আবেদন তৈরি করার সময় আপনার ব্যবহৃত জাতীয় পরিচয় পত্র নাম্বার কিংবা জন্ম নিবন্ধন নম্বরের প্রয়োজন হবে।
  • পাসপোর্ট আবেদন করার সময় পাসপোর্টে যে নাম দিয়েছেন, সেই নামটি ইংরেজি অক্ষরে এবং একই সাথে আপনার জাতীয় পরিচয় পত্রের সাথে মিল রেখে সেটিকে ইনপুট দিতে হবে।
  • আবেদন করার সময় যে ব্যক্তিগত মোবাইল নাম্বার দিয়েছেন সেই ব্যক্তিগত মোবাইল নাম্বারের প্রয়োজন হবে।
  • পাসপোর্ট আবেদন অনুসারে আপনার বর্তমান যে ঠিকানা রয়েছে সেই ঠিকানা যথাযথভাবে বসিয়ে দিতে হবে।
  • যে মাধ্যমে আপনি পাসপোর্ট ফি জমা দিবেন সেই মাধ্যমে একটি একাউন্টে প্রয়োজন হবে। অর্থাৎ বিকাশের মাধ্যমে পাসপোর্ট পেয়ে জমা দিলে একটি বিকাশ একাউন্ট প্রয়োজন হবে এবং তারপরে সেখানে সমপরিমাণ টাকা জমা রাখতে হবে।

উপরে উল্লেখিত ইনফরমেশন যদি আপনার কাছে থেকে থাকে তাহলে আপনি এগুলো ব্যবহার করার মাধ্যমে, খুব সহজেই পাসপোর্ট এ চালান ব্যবহার করার মাধ্যমে পাসপোর্ট ফি জমা দিতে পারবেন।

পাসপোর্ট এ চালান ব্যবহার করে পাসপোর্ট ফি জমা

পাসপোর্ট এ চালান ব্যবহার করার মাধ্যমে আপনি যদি খুব সহজেই পাসপোর্ট ফি জমা দিতে চান এবং একই সাথে বিকাশ, রকেট, নগদ এবং ব্যাংক একাউন্ট ব্যবহার করার মাধ্যমে জমা দিতে চান, তাহলে সেই কাজটি কিভাবে করবেন?

পাসপোর্ট ফি জমা দেয়ার যে আল্টিমেট গাইড রয়েছে সেটি সংক্রান্ত যাবতীয় তথ্য জেনে নেয়ার জন্য নিম্নলিখিত আর্টিকেলটি দেখে নিতে পারেন।

জেনে নিন: পাসপোর্ট ফি জমা দেয়ার আল্টিমেট গাইড

উপরে উল্লেখিত লিংকে প্রবেশ করলে পাসপোর্ট ফি জমা দেয়া সংক্রান্ত যতগুলো তথ্য রয়েছে, প্রায় প্রত্যেকটি তথ্য সংগ্রহ করে নিতে পারবেন। এবং এর মাধ্যমে পাসপোর্ট ফি জমা দেয়ার আল্টিমেট গাইড সংগ্রহ করে নিতে পারবেন।

মোটকথা হলো, উপরে উল্লেখিত ভিজিট করলে পাসপোর্ট ফি জমা দেয়া নিয়ে কোন রকমের সমস্যা হবে না। অর্থাৎ ঘরে বসেই পাসপোর্ট এর ফি জমা দেয়ার কাজ সফলভাবে সম্পন্ন করে নিতে পারবেন।

Leave a Comment

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

nineteen − sixteen =

Scroll to Top